সরস্বতী পূজা

মাঘের শীতে যখন চারদিক থাকে ঘন কুয়াশার চাদরে আচ্ছাদিত, ঠিক তখনই শুক্লপক্ষের শ্রীপঞ্চমী তিথিতে শুভ্রবর্ণা শ্বেতপদ্মবসনা দেবী সরস্বতীর আগমন ঘটে।

সরস্বতী বিদ্যা, বাণী ও সুরের দেবী; সত্য, ন্যায়, শুদ্ধতা ও জ্ঞানালোকের প্রতীক। যিনি স্বহস্তে বীণা, পুস্তক ও লেখনী নিয়ে ময়ূর/ হংসরূপ বাহনে উপবিষ্ট থাকেন। হাতের পুস্তক জ্ঞানচর্চার প্রতীক, হংসবাহন সারবস্তুর প্রতীক এবং বীণা সংগীতবিদ্যার প্রতীক। সার ও অসার মিশ্রিত এই জগতে মানুষ যেনো সারবস্তু গ্রহণ করে এই নির্দেশনাই হংসবাহন দ্বারা দেয়া হয়েছে।

বিদ্যার দেবী বলে বিদ্যার্থীদের কাছেও সরস্বতী পূজা অতি তাৎপর্যপূর্ণ। দেবীর সামনে ‘হাতেখড়ি’ দেয়ার মাধ্যমে শিশুদের বিদ্যাচর্চার সূচনাও করা হয়। অঞ্জলি, আরতি, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সাথে দিনভর চলে পূজার নানা আচার- অনুষ্ঠান।

অজ্ঞতার আঁধার দূর করে সুর, ছন্দ এবং শিক্ষার আলোয় উদ্ভাসিত হবে জগৎ- দেবীর কাছে এটাই সকলের প্রার্থনা।

KIN– এর পক্ষ থেকে সকলকে জানাই সরস্বতী পূজা উপলক্ষ্যে অঢেল শুভকামনা,জগতের কল্যাণ হোক।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

Leave a Comment

Your email address will not be published.